২০১৫ সালের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফলাফল | PSC result 2015

২০১৫ সালের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার এ বছর পাসের হার ৯৮.৫২ শতাংশ। ৩১ ডিসেম্বর সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ফলাফল হস্তান্তর করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান।
ঢাকা বিভাগে পাসের হার ৯৮.৭৪ শতাংশ, রাজশাহী বিভাগে পাসের হার ৯৯ শতাংশ, খুলনা বিভাগে পাসের হার ৯৮.৯৭ শতাংশ, চট্টগ্রাম বিভাগে পাসের হার ৯৮.৪১ শতাংশ, বরিশাল বিভাগে পাসের হার ৯৮.৩০ শতাংশ, সিলেট বিভাগে পাসের হার ৯৬.৭৯ শতাংশ ও রংপুর বিভাগে পাসের হার ৯৮.৫৬ শতাংশ। উক্ত ফলাফল বেলা সাড়ে এগারোটার পর এসএমএস ও অনলাইনে প্রকাশিত হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে জানবেন এই ফলাফল…
পিএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট জানতে ডিপিই-টেলিটকের এই অফিসিয়াল সাইটটি http://dperesult.teletalk.com.bd/dpe.php ভিজিট করুন ও প্রয়োজনীয় তথ্য পূরণ করে সাবমিট বাটনে ক্লিক করে ফলাফল জানুন।

মোবাইলে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা ২০১৫ এর ফলাফল দেখার নিয়মঃ

প্রাথমিক ও শিক্ষা সমাপনীঃ
DPE<space> আপনার উপজেলা/থানার নাম <space>রোল নম্বর<space>পাশের বছর
এরপর Send করুন 16222 নম্বরে।
উদাহরণ: DPE HOMNA 34589 2015 Send করুন 16222 নম্বরে।

ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনীঃ
মাদ্রাসা বোর্ডের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপণী পরীক্ষার ফলাফল পেতে শুধু DPE এর স্থলে EBT লিখতে হবে। বাকি নিয়ম অপরিবর্তিত থাকবে।
উদাহরণঃ EBT HOMNA 34589 2015 Send করুন 16222 নম্বরে।

অ্যানড্রায়েড মোবাইলে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপণী পরীক্ষার ফলাফলঃ
প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপণী পরীক্ষার ফল এখন থেকে অ্যানড্রায়েড মোবাইলে জানা যাবে। এখন থেকে যেকোনো অ্যানড্রয়েড মোবাইল থেকে Primary Terminal Result (https://play.google.com/store/apps/details?id=com.coderainbd.primaryterminalresult) অ্যাপস এর মাধ্যমে ফলাফল পাওয়া যাবে।
এ বছর প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় মোট ৩২ লাখ ৫৪ হাজার ৫১৪ পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে। এরমধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে ২৯ লাখ ৪৯ হাজার ৬৩ জন ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনীতে ৩ লাখ ৫ হাজার ৪৫১ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়।

গত বছর প্রাথমিক সমাপনীতে ২৭ লাখ ৮৮ হাজার ৫৪৪ জন ও ইবতেদায়িতে ৩ লাখ ১১ হাজার ২৬৫ জনসহ মোট ৩০ লাখ ৯৯ হাজার ৮০৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়।

পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য ২০০৯ সাল থেকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু হয়। আর ইবতেদায়ীতে এই পরীক্ষা শুরু হয় ২০১০ সালে। প্রথম দুই বছর বিভাগভিত্তিক ফল দেওয়া হলেও ২০১১ সাল থেকে গ্রেডিং পদ্ধতিতে ফল দেওয়া হচ্ছে। ২০১৩ সাল থেকে এই পরীক্ষার সময় আধা ঘণ্টা বাড়িয়ে আড়াই ঘণ্টা করা হয়।

 লেখাটি লেখাপড়া বিডি থেকে নেয়া হয়েছে।

1 comments:

আপনার মন্তব্য দিন
১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ৫:১৪ AM ×

প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা 2015 এর নিবন্ধন ফর্ম

উত্তর দিন
avatar
admin

প্রিয় পাঠক, পোস্টটি পড়ার পর আপনার ভালো লাগা, মন্দ লাগা, জিজ্ঞাসা কিংবা পরামর্শ প্রদানের জন্য দয়া করে গঠনমূলক মন্তব্য প্রদান করুন। যা আমাদের ব্লগিং চালিয়ে যেতে অনেক উৎসাহ অনুপ্রেরণা জাগাবে। আর প্রাসঙ্গিক যেকোন প্রশ্নের সমাধান পেতে মেইল করুন contact@projukte.com ঠিকানায় অথবা অধিক জরুরী প্রয়োজনে কল করুন ০১৭৫৪৭২০২৫৫ নম্বরে। আপনার একটি মন্তব্যই আমাদের নিকট অনেক মূল্যবান। সাথেই থাকুন প্রযুক্তি ডট কম বাংলা ব্লগের সাথে।
ধন্যবাদান্তে,
প্রযুক্তি ডট কম

আপনার মূল্যবান মন্তব্য প্রদানের জন্য ধন্যবাদ